ই পর্চা

ই-পর্চা www.eporcha.gov.bd -ই পর্চা অনলাইন আবেদন,ই-পর্চার সুবিধা ও জমির পর্চা ডাউনলোড

ই-পর্চা হতে পারে আপনার একমাত্র মাধ্যম, যার মাধ্যমে মাধ্যমে আপনি আপনার জমির যে কোন তথ্য যাচাই করতে পারেন বা দেখতে পারেন। ই-পর্চা মাধ্যমে যদি আপনার জমির দাগ নম্বর খতিয়ান নম্বর জানা থাকে উক্ত দাগ নম্বর খতিয়ান নম্বর দিয়ে আপনি আপনার জমির মালিক মালিক এর পিতার নাম অথবা তার স্বামীর নাম খুব সহজে যাচাই করতে পারেন। ই-পর্চা হতে পারে আপনার জমির তথ্য ভান্ডার আপনি ঘরে বসেই দেখতে পারেন।

ই-পর্চা কি

ই-পর্চা হচ্ছে একটি অনলাইন প্লাটফর্ম যার মাধ্যমে যে কোন ব্যক্তি খুব সহজে ঘরে বসে নিজে নিজেই জমির খতিয়ান ডাউনলোড করতে পারবে, মালিকানা যাচাই করতে পারবে। আরো বিস্তারিত বললে ই-পর্চার মাধ্যমে জমির যাবতীয় তথ্য অর্থাৎ সি এস খতিয়ান, আর এস খতিয়ান, জমির নকশা, মৌজা, আকৃতি, পরিমাণ, মালিকানা, এবং মালিক এর পিতার নাম বা স্বামীর নাম সহ যাবতীয় তথ্য সরবরাহ করে। ই-পর্চা মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে খুব সহজে আপনি নিজেই আপনার জমির যাবতীয় তথ্য দেখতে পারবেন এবং তা যাচাই করতে পারবেন।

ই-পর্চার সুবিধা

জমির তথ্য জানার জন্য আমাদেরকে পূর্বে ভূমি অফিসে যেতে হতো, সেখানে লম্বা একটি লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হতো ঘন্টার পর ঘন্টা। অর্থাৎ জমির খতিয়ান বা অন্য কোনো তথ্য পেতে হলে আমাকে যেমন সময় ব্যয় করতে হতো ঠিক তেমনি টাকা ব্যয় করতে হতো। প্রত্যেকটা ভূমি অফিস টাকা ছাড়া কথাই বলেনা, কিন্তু এই প্রচার মাধ্যমে এখন সে ঝামেলা আর নেই। জমির কোন প্রকার তথ্যের জন্য আপনাকে ভূমি অফিস যেতে হচ্ছে না আপনি ঘরে বসেই আপনার জমির যাবতীয় কাজ বা যাবতীয় তথ্য যাচাই করতে পারবেন।

ই খতিয়ান এর মাধ্যমে মালিকানা যাচাই

ই-পর্চা ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আপনি খুব সহজেই খতিয়ানের মাধ্যমে জমির মালিকানা এবং মালিকের যাবতীয় তথ্য যাচাই করতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে আপনার জমির দাগ নম্বর অথবা খতিয়ান নম্বর অবগত থাকতে হবে, যদি আপনি আপনার জমির দাগ নম্বর খতিয়ান নম্বর জেনে থাকেন সে ক্ষেত্রে আপনি মোবাইল ফোন বা ল্যাপটপের মাধ্যমে যে কোন ব্রাউজার ব্যবহার করে ই-পর্চা ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। এরপর সেখানে আপনার প্রয়োজনীয় অপশনটি বাছাই করুন অর্থাৎ ই খতিয়ান অপশনটি সিলেক্ট করুন। এবার আপনি আপনার জমির দাগ নম্বর খতিয়ান নম্বর টি উক্ত খতিয়ান ফরম সরবরাহ করুন এবং অনুসন্ধানে ক্লিক করুন।

এবার আপনি আপনার সামনে একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন যেখানে আপনার সরবরাহকৃত তথ্যের ভিত্তিতে একটি খতিয়ানে এবং এর মালিকানা স্বত্ব এবং উক্ত মালিকের পিতার নামঃ বা স্বামীর নাম সহ যাবতীয় তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। তবে তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে অবশ্যই নিশ্চিত হতে হবে আপনার তথ্যগুলো সম্পূর্ণ নির্ভুল অন্যথায় আপনাকে ভুল ফলাফল প্রদান করা হবে।

খতিয়ান নম্বর কি

খতিয়ান হচ্ছে জমির যাবতীয় তথ্য অর্থাৎ মৌজা নম্বর জমির আকৃতির নকশা পরিমাণ জমির মালিক এবং মালিকের পিতার নাম বা স্বামীর নাম সহ বিশদ তথ্য সংরক্ষিত একটি বই। আর খতিয়ান নম্বর হচ্ছে প্রত্যেকটা ধারাবাহিক একটা নাম্বার থাকে যেটাকে জমির দাগ নম্বর অথবা খতিয়ান নম্বর বলা হয়। উক্ত দাগ নম্বর বা খতিয়ান নম্বর ধারা জমির অবস্থান নির্ণয় করা হয়, অর্থাৎ যদি জমির দাগ নম্বর অথবা খতিয়ান নম্বর ভুল হয় তার মানে জমির অবস্থান ভুল হবে অর্থাৎ অন্য কোন জমিকে নির্দেশ করবে। তাই জমির খতিয়ান খতিয়ান নম্বর খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়, তাই জমি কেনাবেচার সময় অবশ্যই জমির খতিয়ান নম্বর খুব ভালোভাবে দেখে নিতে হবে যদি খতিয়ান নম্বর ভুল হয় তাহলে ওই জমির স্থলে অন্য কোন জমি দেখানো হবে।

আমাদের লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই মন্তব্য করে আমাদের জানাবেন এবং এরকম আরো ভালো ভালো পোস্ট পেতে আমাদের সাইটটি অনুসরণ করুন। আপনাদের কোনো প্রয়োজনে জিজ্ঞাসা থাকলে আমাদেরকে অবশ্যই মন্তব্য করে জানাবেন আমরা আপনাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করার চেষ্টা করব।

Rahat Ali

I'm Rahat Ali here with you. I write about Informative content. If you are looking for Education, Travel, Telecom, official contact info of any Company, Organization, or Person, let's read my content on this website.
Back to top button
Close